শিশু ইয়াসিনের বাবা-মা মামলা না করলে বাদী হবে পুলিশ

চট্টগ্রামের হাটহাজারীতে একটি মাদরাসায় ৮ বছর বয়সী এক শিশু শিক্ষার্থীকে নির্মম নির্যাতনের ঘটনায় অভিযুক্ত শিক্ষক ইয়াহহিয়াকে আটক করেছে পুলিশ।

বুধবার (১০ মার্চ) বিকেল ৩টার দিকে রাঙ্গুনিয়ার সাফরভাটা এলাকা থেকে তাকে আটক করা হয় বলে জানিয়েছে হাটহাজারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রফিকুল ইসলাম।

ওসি বলেন, ‘মামলা দায়েরের জন্য শিশুর মা-বাবাকে রাজি করার চেষ্টা করা হচ্ছে। যদি তারা রাজি না হন, তাহলে পুলিশ বাদী হয়ে মামলা করবে।’

মঙ্গলবার (৯ মার্চ) বিকেলে মায়ের পিছু পিছু যাওয়ার কারণে শিশু ইয়াসিনকে বেদম মার দেন শিক্ষক ইয়াহইয়া। রাতেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয় এ ঘটনার একটি ভিডিও।

৩৩ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, ইয়াসিনকে ঘাড় ধরে নিয়ে যাচ্ছেন শিক্ষক ইয়াহইয়া। কক্ষে নেয়ার পর বেত দিয়ে বেধড়ক পেটাতে থাকেন। আর শিশুটি বাঁচার আকুতি জানাতে থাকে। তারপরেও ক্ষ্যান্ত হননি শিক্ষক ইয়াহইয়া। ভিডিওটি সামাজিক মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ল নির্যাতনের প্রতিবাদে সরব হয়ে উঠেন নেটিজেনরা।

পরে রাত দেড়টার দিকে মাদরাসা থেকে শিশু শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করেন হাটহাজারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রুহুল আমিন। আটক করা হয় নির্যাতনকারী শিক্ষক হাফেজ ইয়াহইয়াকে। তবে সে সময় নির্যাতনের শিকার শিশুর পরিবারের অনীহার কারণে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে কোনো ব্যবস্থা নেয়া যায়নি বলে জানান ইউএনও।